অনুপ্রেরণা – ৬

[ইসলামিক অনলাইন ইউনিভার্সিটি ফেসবুক পেইজ থেকে সংগৃহীত ও অনুবাদকৃত]

* * *
আল্লাহ আপনার সাথে থাকার অর্থ এই নয় যে আপনার সমুদ্র যাত্রাতে বড় কোন ঢেউ কাঁপাবে না। আল্লাহ সাথে থাকার মানে হলো, এমন একট জাহাজে চড়ে বসা যা কোন ঝড়ই ডুবাতে পারবে না।

* * *
ঔদ্ধত্য ও অহংকারের কারণে শয়তানকে জান্নাত থেকে বের করে দেয়া হয়েছিলো। খেয়াল রাখবেন এই কারণগুলো যেন আপনার জান্নাতে ঢোকা থেকে বঞ্চিত হবার কারণ না হয়।

* * *
কাউকে হতাশ করে দেয়ার মানুষ না হয়ে কাউকে উজ্জীবিত করে দেয়া একজন মানুষ হোন। ইতিবাচক হোন, আশা ও ভালোবাসা ছড়িয়ে দিন।

* * *
শুধু আল্লাহর জন্য চোখের পানি ঝরিয়ে আপনার অন্তরকে পরিষ্কার করুন।

* * *
আচরণ খুব ছোঁয়াচে জিনিস —  তাই খেয়াল করুন আপনি কাদের সাথে আড্ডা দিচ্ছেন।

* * *
কখনো কখনো আল্লাহ আমাদের কাছ থেকে অনেক কিছু নিয়ে নেন শুধু এটা মনে করিয়ে দিতেই যে পৃথিবী হলো ক্ষণস্থায়ী একটি জায়গা এবং দুনিয়া ও আখিরাতের সমস্ত কিছুই কেবলমাত্র আল্লাহর তত্ত্বাবধানে চলে।

* * *
আপনি যখন কোন কঠিন সময়ের মধ্য দিয়ে যাবেন, মনে রাখবেন, কিছু মানুষ ভয়াবহ দুর্যোগের মধ্য দিয়ে দিনাতিপাত করছে।

* * *
অল্প কিছু মুসলিমকে দেখে ইসলাম সম্পর্কে কোন ধারণা করা করে ফেলা হলো পচা ফল খেয়ে গোটা গাছের ব্যাপারে কটু মন্তব্য করার শামিল।

* * *
​ব্যস্ত জীবনে নামায আদায় করা কঠিন হয়ে যায়, কিন্তু নামায ব্যস্ত জীবনকে সহজ করে তোলে।

* * *
খুব আনন্দের সময়েও দিন ২৪ ঘন্টার হয়, খুব কষ্টের সময়েও দিন ২৪ ঘন্টার হয়। আল্লাহর উপর ভরসা করে আল্লাহর পথে চলতে থাকুন। তিনি আপনাকে সঠিক দিক নির্দেশনা দেখাবেন।

অনুপ্রেরণা – ৫

* * *
হাল ছাড়বেন না! ভালো কিছু হতে সময় লাগেই…

* * *
ঠিক যেই মূহুর্তে আমরা আল্লাহকে ভুলে যাই, আমরা আসলে সবকিছুকেই হারিয়ে ফেলি এবং ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে যাই।

* * *
প্রচন্ড কঠিন, দুর্যোগময়, কষ্টকর সময়েও একজনের পক্ষে শান্তি খুঁজে পাওয়া সম্ভব যদি তিনি আল্লাহর দিকে মুখ ফিরিয়ে নিয়ে তার কাছে সাহায্য প্রার্থনা করেন

* * *
যে মানুষটার সাথে আমরা ভালো হবার প্রতিযোগিতা করতে পারি সে হলো আমাদের গতকালকের আমি।

* * *
জ্ঞানী মানুষেরা সবসময় চুপ থাকেন না, কিন্তু তারা জানেন কখন চুপ থাকতে হয়।

* * *
যে আল্লাহর সামনে হাঁটু গেঁড়ে সিজদাহ করতে পারে সে সবার সামনে দৃঢ় হয়ে শক্তভাবে দাঁড়িয়ে থাকতে পারে।

* * *
দুশ্চিন্তা আপনার আগামীকালের সমস্যা দূর করতে পারবে না, বরং আজকের শান্তিটুকু দূর করে দিবে।


* * *
দু’আ করার সময় তাদেরকে স্মরণ রাখুন যারা আপনাকে একজন উন্নত মুসলিম হবার পথে সাহায্য করেছেন, করছেন।

* * *
কেবলমাত্র বোকারাই অস্থায়ী পৃথিবীতে স্থায়ী বাড়ি/গাড়ি/সম্পর্ক খুঁজে হয়রান হয়…

* * *
আপনার ভাঙ্গা হৃদয় কখনো জোড়া লাগবে না যদি তা আল্লাহর কাছে সঁপে দিতে না পারেন।

* * *
আমি আল্লাহর কাছে অনেককিছু চেয়েছি এবং তিনি আমাকে অনেক কিছু দিয়েছেন। আমি হয়ত যা চেয়েছি তা পাইনি কিন্তু তা-ই পেয়েছি যা আমার প্রয়োজন ছিলো।

* * *
ছোট ছোট কিছু কাজ মিলে বিশাল অর্জন আর সফলতাকে তৈরি করে। ছোট কাজগুলো কখনই কম মূল্যবান নয়।

* * *
সালাতকে বোঝা মনে করা উচিত নয়। আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তা’আলা আমাদেরকে সলাত দিয়েছেন যেন আমরা আমাদের উপরের বোঝাকে হালকা করতে পারি।

* * *
এই পৃথিবীর সবচেয়ে সুন্দর ও সৌভাগ্যময় মূহুর্তগুলোর একটি হলো সিজদাহ।

* * *
হৃদয় ভেঙ্গে যাওয়ার কষ্ট আর মন খারাপ হারিয়ে গিয়ে প্রশান্তিতে পরিণত হয় যখন আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তা’আলাকে স্মরণ করা হয়, তাঁর কাছে দু’আ করা হয়।

* * *
যখন সমস্যা সমাধানের কোন উপায়ই আর দেখা যায় না, তখন আল্লাহ তা থেকে বের হবার পথ করে দেবেন। দোয়া করতে থাকা উচিত সবসময়।

* * *
আপনার জীবনে মানুষ আসবে এবং যাবে, এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু সবকিছুর শেষে একটা সত্যিকারের ভালোবাসার গল্প থাকবে, সেটা হবে আপনার এবং আল্লাহর মাঝে!

* * *
জান্নাতের পথে এগিয়ে গেলে তো কষ্ট হবেই। যেকোন ভালো জিনিস পেতে তো কষ্ট করতেই হয়।

* * *
আপনি যখন জীবনে আল্লাহর জন্য সময় বের করতে পারবেন না, তখন জীবনের কোন কিছুই ঠিকমতন হবে না।

* * *
এমনভাবে বাঁচুন যেন যারা আল্লাহকে চেনে না কিন্তু আপনাকে চেনে তারা যেন আপনাকে দেখে আল্লাহকে চিনতে পারে। 

অনুপ্রেরণা – ৪

ইসলাম পালনের মানে এই না যে আমরা আনন্দ ও উৎসব করতে পারবো না। ইসলাম আমাদের সব রকমের আনন্দের সুযোগ দিয়েছে কিন্তু তা হতে হবে যাবতীয় পাপকাজ মুক্ত।

* * *
দোয়া করা ছাড়বেন না। যতই আশাহীন আর কঠিন লাগুক সময়। বিশ্বাস রাখুন। আল্লাহ নিশ্চয়ই প্রশান্তি লাভের ব্যবস্থা করে দেবেন।

 * * *
সুন্দর একটা দিন শুরু করার চাবি হলো ফজরের সলাত।

 * * *
আল্লাহর জন্য বাঁচা — এই কথাটির মানে হলো আপনি কী সেই ব্যাপারে কম খেয়াল করে আল্লাহ আপনাকে কেমন করে চান সেই বিষয়েই বেশি মন দেয়া।

 * * *
দুনিয়ার প্রতি ভালোবাসা আপনাকে আখিরাত ভুলিয়ে দেবে।

 * * *
হে আল্লাহ! আমার অন্তরকে দুনিয়ার আকর্ষণ থেকে মুক্ত করে আখিরাতের সাথে যুক্ত করে দেন। আমীন।

 * * *
যখন আপনি যেভাবে ভেবেছিলেন সেভাবে জীবনের ঘটনাগুলো না ঘটে তখন আল্লাহর উপরে বিশ্বাস রাখুন। নিশ্চয়ই আপনার ব্যাপারে তার উত্তম পরিকল্পনা আছে।

 * * *
বারবার তাওবা করতে স্মরণ করিয়ে দিন নিজেকে। যতবারই ভুল করে ফেলুন না কেন, মনে রাখবেন আল্লাহ তাওবাকারীদেরকে ভালোবাসেন।

 * * *
দোয়ার শক্তির ব্যাপারে আশা হারিয়ে ফেলবেন না! মনে রাখবেন আল্লাহ আপনার সমস্ত দোয়াই কবুল করেন যতক্ষণ তা আপনার জন্য কল্যাণকর হয়।

 * * *
হৃদয় ভেঙ্গে যাওয়ার কষ্টগুলো আমাদেরকে স্মরণ করিয়ে দেয় আমার হৃদয়ে ভালোবাসার সর্বোচ্চ আসনে আল্লাহ ছাড়া এই পৃথিবীর অন্য কোন কিছুকেই বসিয়ে দেয়া উচিত নয়।

 * * *
যখন আপনার জীবনে আল্লাহ ছাড়া আর কিছুই থাকেনা, তখন উপলব্ধি করতে পারবেন আল্লাহই আপনার জন্য যথেষ্ট।

 * * *
আপনি যখন কারো জন্য দোয়া করেন তখন আপনি আসলে আপনারই উপকার করেন কেননা তখন ফেরেশতারাও আপনার জন্য সেই দোয়াটি করে।

 * * *
আপনার কাজ করার সময়টা এখনই! পরে করবেন ভেবে কিংবা আলসেমি করে অমূল্য সময়কে নষ্ট করবেন না!

 * * *
শব্দ দিয়ে অনেক কিছুকে গড়ে দেয়া যায়, আবার ধ্বংস করে দেয়া যায় অনেক কিছু, শব্দ ব্যবহারের আগে তাই খেয়াল করা উচিত।

 * * *
আপনি কষ্ট-যন্ত্রণা অথবা বিষণ্ণতায় ভুগছেন? তাহলে কুরআন পড়ুন যা সমস্যার সমাধান, সঠিক নির্দেশনা ও অন্তরের সকল রোগের চিকিৎসা দেবে।

অনুপ্রেরণা -৩

​​​
 * * * আল্লাহর কাছে নিজ দুর্বলতা ও অক্ষমতাকে স্বীকার করতে লজ্জা পাবেন না কেননা আল্লাহ আপনার সেই দুর্বলতাকে শক্তিতে পরিণত করতে সাহায্য করবেন।

* * *
​মনে রাখবেন, আল্লাহ ক্ষমা করতে কখনো ক্লান্ত হন না।

* * *
জ্ঞানার্জনের ​ ফলে আমাদের অনেক বেশি বিনয়ী হবার কথা। যদি জ্ঞান অর্জন আমাদেরকে উদ্ধত করে দেয় ​ তাহলে ​ আমরা কী নিয়াতে কী শিখছি তা নিয়ে চিন্তা করা দরকার।​

 * * *
প্রশান্তি খুঁজতে বরং সলাতে দাঁড়িয়ে পড়ুন।

* * *
কখনো কখনো লোকে হয়ত আপনাকে ফিরিয়ে দেবে। বিষয়টাকে ব্যক্তিগতভাবে নিয়েন না, কষ্ট পেয়েন না। কেননা লোকের ফিরিয়ে দেয়ার মাধ্যমে আল্লাহ হয়ত আপনাকে তার পথে ঘুরিয়ে দেবেন।

 * * *
যদি আপনার জীবনের সবচেয়ে আনন্দের মূহুর্তগুলো পৃথিবীর বিষয়গুলোর কারণে হয়ে থাকে। তাহলে আপনি কোনদিন সত্যিকারের আনন্দ পাননি।

 * * *
এই পৃথিবীর সবচেয়ে সুন্দর ও সৌভাগ্যময় মূহুর্তগুলোর একটি হলো সিজদাহ।

 * * *
ঠিক যেই মূহুর্তে আমরা আল্লাহকে ভুলে যাই, আমরা আসলে সবকিছুকেই হারিয়ে ফেলি এবং ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে যাই।

 * * *
কখনো কখনো অন্য কারো হৃদয়কে প্রশান্ত করতে আপনার মুখের কয়েকটি শব্দই যথেষ্ট।

 * * *
সালাতকে বোঝা মনে করা উচিত নয়। আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তা’আলা আমাদেরকে সলাত দিয়েছেন যেন আমরা আমাদের উপরের বোঝাকে হালকা করতে পারি।

 * * *
কারো চরিত্র সম্পর্কে যদি ধারণা পেতে চান তাহলে খেয়াল করুন সে কাদের সাথে মেলামেশা করে।

 * * *
ছোট ছোট কিছু কাজ মিলে বিশাল অর্জন আর সফলতাকে তৈরি করে। ছোট কাজগুলো কখনই কম মূল্যবান নয়।

 * * *
অসুস্থতা দিয়ে আল্লাহ ঈমানদারদের গুনাহ মাফ করিয়ে নেন।

 * * *
মুভিতে দেখা বিয়েগুলোর সাথে আপনার বিয়ের তুলনা করতে যাবেন না। মুভির বিয়েগুলো লিখেছে স্ক্রিন-রাইটাররা, আপনারটা লিখেছেন আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তা’আলা।

 * * *
যে মানুষটার সাথে আমরা ভালো হবার প্রতিযোগিতা করতে পারি সে হলো আমাদের গতকালকের আমি।

 * * *
যে আল্লাহর সামনে হাঁটু গেঁড়ে সিজদাহ করতে পারে সে সবার সামনে দৃঢ় হয়ে শক্তভাবে দাঁড়িয়ে থাকতে পারে।

 * * *
আমি আল্লাহর কাছে অনেককিছু চেয়েছিলাম এবং তিনি আমাকে কিছু সুযোগ দিয়েছিলেন। আমি হয়ত যা চেয়েছি তা পাইনি কিন্তু তা-ই পেয়েছি যা আমার প্রয়োজন ছিলো।

 * * *
ভালোবাসার গভীরতম সম্পর্কটি আল্লাহর সাথে ঠিক করে রাখুন, তিনি গোটা পৃথিবীকে আপনার জন্য ঠিক করে দেবেন।

 * * *
কেবলমাত্র বোকারাই অস্থায়ী পৃথিবীতে স্থায়ী বাড়ি/গাড়ি/সম্পর্ক খুঁজে হয়রান হয়।

 * * *
এই যে জীবনের এত কষ্ট-ক্লান্তি-চাওয়া-পাওয়া, আনন্দ-হাসি-গান … কিছুই রবে না বেশিদিন। থাকবেন শুধু আমাদের রব আল্লাহ, যিনি আল হাইয়্যু, আল কাইয়্যুম।

 * * *
রেগে গিয়ে করা ভুলের ক্ষতির আফসোস করা ও ক্ষতি কাটিয়ে ওঠার পরিশ্রমের চেয়ে না রাগ করে সেই বিষয়টিতে ভুগতে থাকাও তো অনেক ভালো।

 * * *
অযুর পানির সাথে সাথে যখন অশ্রুগুলো ধুয়ে যায়, তখন অদ্ভুত একটা অনুভূতি হয়…

 * * *
পৃথিবীতে সুন্দর মানুষ আছে। অবশ্যই আছে। এই বিশ্বাস থাকলে তার দেখাও আপনি পাবেন। হয়ত নিজের ইচ্ছেমতন সময়ে না, ইচ্ছেমতন জায়াগায় না। অন্য কোথাও, অন্যসময়। আল্লাহর ইচ্ছেমতন…

 * * *
দুশ্চিন্তা আপনার আগামীকালের সমস্যা দূর করতে পারবে না, বরং আজকের শান্তিটুকু দূর করে দিবে।

 * * *
আমরা ভুল থেকে শিক্ষা না নিলে, ভুলগুলোই আমাদেরকে শিক্ষা দেয়…

 * * *
দু’আ করার সময় তাদেরকে স্মরণ রাখুন যারা আপনাকে একজন উন্নত মুসলিম হবার পথে সাহায্য করেছেন, করছেন।

 * * *
জীবনের পরতে পরতে খুশি-আনন্দ-কষ্টের মাঝে আল্লাহ আপনাকে মেসেজ দিয়ে চলেছেন… তার আরো কাছে যেতে, তার দিকে মুখ ফিরিয়ে নিতে বলছেন। খেয়াল করে পড়ে দেখুন…

 * * *
ধৈর্যের বাঁধ ভাঙ্গার আগে একটু ভাবুন, আপনার ব্যাপারে আল্লাহ কতটা ধৈর্যশীল…

 * * *
জ্ঞানী মানুষেরা সবসময় চুপ থাকেন না, কিন্তু তারা জানেন কখন চুপ থাকতে হয়।

 * * *
একদিন আপনি কিছু মানুষের কাছে কেবলই স্মৃতি হয়ে যাবেন। প্রাণপন চেষ্টা করুন যেন তা ভালো স্মৃতি হয়…

 * * *
আপনি যখন ভালোবাসার জন্য আহাজারি করছেন। ডানে-বামে তাকিয়ে দেখেন কেউ খাবারের জন্য কাঁদছে, মরেও যাচ্ছ। আবার অসুস্থতায় ও চিকিৎসাহীনতায় মারা যাচ্ছে।

 * * *
হাল ছাড়বেন না! ভালো কিছু হতে সময় লাগেই…

জীবনে যা হয় তা আসলে কল্যাণময়

এক রাজার একজন কর্মচারি ছিলো যে সবসময় যেকোন অবস্থাতেই রাজাকে বলতো, “রাজা মশাই, কখনো মন খারাপ করবেন না কেননা আল্লাহ যা করেন সবকিছুই নিখুঁত ও সঠিক।”

একদিন তারা শিকারে বের হয় এবং এক হিংস্র প্রাণি তাদের আক্রমণ করে। রাজার কর্মচারীটি সেই প্রাণীকে মেরে ফেলতে সমর্থ হলেও রাজাকে তার একটি আঙ্গুল হারানো থেকে রক্ষা করতে পারেনি। কৃতজ্ঞ না হয়ে বরং ক্ষিপ্ত হয়ে রাজা তাকে বলে ওঠে, “আল্লাহ যদি ভালো হতেন তাহলে আমাকে এই আক্রমণে পড়ে আঙ্গুল হারাতে হতো না।”

সেই কর্মচারি উত্তর দিলো, “এতকিছুর পরেও আমি বলবো, আল্লাহ অত্যন্ত ভালো এবং তিনি যা করেন সবই নিখুঁত এবং কল্যাণময়।” এ কথায় অপমানিত হয়ে রাজা তার কর্মচারিকে গ্রেপ্তার করার নির্দেশ দেয়।

এরপর একদিন রাজা আবার শিকারে বের হন এবং একদল বন্য মানুষদের হাতে বন্দী হয় যারা মানুষকে বলী দিত। অন্যদিকে সেই বন্য মানুষরা দেখতে পেলো রাজার একটি আঙ্গুল নেই। তাই তারা রাজাকে ছেড়ে দিলো কেননা তারা বিশ্বাস করতো শারীরিক খুঁতসম্পন্ন কোন মানুষকে দেবতার উদ্দেশ্যে বলী দিলে তা গ্রহণ হয় না।

মুক্ত হয়ে প্রাসাদের ফেরার পথে রাজা সেই কর্মচারীটির মুক্তি ঘোষণা করে ডেকে এনে বলে, “বন্ধু, আল্লাহ আমার প্রতি সত্যি সদয় ছিলেন। আমি মৃত্যুর মুখোমুখি চলে গিয়েছিলাম কিন্তু আঙ্গুল হারানোর কারণে আমাকে ছেড়ে দেয়া হয়। কিন্তু আমার একটা প্রশ্ন আছে,  আল্লাহ যদি এতই ভালো হবেন, তাহলে তিনি কেন আমার দ্বারা তোমাকে কারাভোগ করতে দিলেন?”

কর্মচারী উত্তর দিলো, “রাজামশাই, আমি যদি আপনার সাথে যেতাম তাহলে তারা আমাকে বলী দিতো কেননা আমার কোন আঙ্গুলে ক্ষত নেই।  আল্লাহ যা করেন সবই নিপুণ এবং সঠিক, তিনি কখনো কোন ভুল করেন না।”

আমরা প্রায়ই জীবনের ব্যাপারে এবং জীবনে যেসব কষ্টকর বিষয়ের মুখোমুখি হই সেসব নিয়ে অভিযোগ করি। আমরা ভুলে যাই কোন কিছুই আপনাআপনি হয় না, বরং সবকিছুরই একটি নির্দিষ্ট কারণ রয়েছে।  আল্লাহই ভালো জানেন তিনি কেন এই কথাগুলো আপনাকে পড়ার সুযোগ করে দিলেন আজকে, তাই অনুগ্রহ করে এই মেসেজটি মানুষের কাছে পৌঁছে তাদের প্রতি দয়া করুন।

সবকিছুই নির্দিষ্ট কোন কারণে ঘটে, সবকিছুর একটি উদ্দেশ্য আছে এবং তা আমাদের কল্যাণের জন্যই। নিশ্চয়ই আল্লাহ মহান, আল্লাহু আকবার!

(লেখাটি শাইখ যাহির মাহমুদের পেইজ থেকে সংগৃহীত ও অনূদিত)
* * * *

[২৯ আগস্ট, ২০১৩]

অনুপ্রেরণা – ২

* * *
ভালোকাজের মেঘ থেকে বৃষ্টি ঝরে। যখন সময় হয় কেবল তখনই তার বর্ষণ হয়। আল্লাহ বৃষ্টি বর্ষণ করেন শুকনো মৃত মাটির উপরে; একদম সঠিক সময়েই। যখন পথ অবারিত হবার সময় হবে, তখনই সেই পথ প্রশস্ত হবে। তিনি তার সময় অনুযায়ীই সেই কাজটি করেন, আমাদের সময়ের হিসেবে নয়। আর এটা আমাদের ক্বাদরের ব্যাপারে সন্তুষ্ট থাকার একটি অংশ এবং যা হয়েছে তা আপনার জন্য নির্ধারিত ছিলো বলেই হয়েছে। ~ শাইখ হামজা ইউসুফ, [সংক্ষেপিত, ২০১১ রিহলা]

* * *
“যাদের হৃদয় ভেঙ্গে যায় তাদের সাথে আল্লাহ থাকেন। আপনার হৃদয় যখন ভেঙ্গে যায়, তা একটা ভালো ঘটনা, কেননা ভেঙ্গে যাওয়া হৃদয়টি তার মাঝে আল্লাহর আলো প্রবেশের পথ প্রশস্ত করে দেয়। দুনিয়া তো সাজানোই হয়েছে এমন করে যা আপনার অন্তরকে ভাঙ্গবে, চুরমার করে দিবে।” ~ শাইখ হামজা ইউসুফ

* * *
পৃথিবীতে দুই ধরণের মানুষ আছে, একদল কাজ করে এবং অপরদল যারা কাজ করে তাদের সমালোচনা করে।” ~ শাইখ হামজা ইউসুফ

* * *
অতীত আমাদের মনে ঘন কুয়াশার মত। আর ভবিষ্যত? সম্পূর্ণ একটা স্বপ্ন। আমরা ভবিষ্যত কেমন হবে তা ধারণাই করতে পারি না, যেমন পারিনা অতীতকে বদলে দিতে।~ শামস তাবরিজি

* * *
পৃথিবীটা সুউচ্চ পর্বতের মতন, এখানে প্রতিধ্বনি নির্ভর করে তোমার উপরেই। তুমি যদি ভালো কিছুর জন্য চিৎকার করো, পৃথিবীও তোমাকে তেমন প্রতিদান দিবে। তুমি যদি খারাপ কথা বলে চিৎকার দাও, সে তোমাকে তেমনই ফেরত দিবে। কেউ যদি তোমার সম্পর্কে খারাপ কিছু বলে, তাদের সম্পর্কে ভালো কথা বলো।  পৃথিবীকে বদলে দিতে তোমার হৃদয়কে বদলে দাও। ~ শামস তাবরিজি

* * *
​​​​এই​ পথ কোথায় গিয়ে ঠেকেছে তা জানার চেষ্টা করা অর্থহীন। তুমি শুধু প্রথম ধাপটি নিয়ে চিন্তা করো, পরেরগুলো এমনিতেই চলে আসবে। ~ শামস তাবরিজি ​

* * *
ধুলো-মাটিকে তাচ্ছিল্য করো না। তুমি বেঁচে থাকতে সে তোমার পায়ের নিচে থাকে। তুমি মরে গেলে সে তোমার ওপরে থাকবে। ~ জনৈক পীর সাহেব

* * *
​”আপনার গোটা জীবনটা হয়ত আপনি ভালোবাসা খুঁজে পার করেছেন। কিন্তু একটা দিন আসবে যখন আপনি উপলব্ধি করবেন, ভালোবাসা পাওয়ার সময় নয় বরং যখন আপনি মানুষকে ভালোবাসা দিয়েছিলেন, তখনই আনন্দ পেয়েছিলেন।” ~ অমল আহমেদ আলবাজ

* * *
“আল্লাহকে যারা ভালোবাসেনা, তাদেরকে ভালোবাসবেন না। তারা যদি আল্লাহকে ছেড়ে থাকতে পারে, তারা আপনাকে ছেড়ে চলে যাবে।” ~ইমাম শাফিঈ

* * *
“কারো উপরে বেশি নির্ভরশীল হয়ে যেয়ো না। মনে রেখো, অন্ধকারে তোমার নিজের ছায়াও তোমাকে ছেড়ে চলে যায়।”~ ইমাম ইবনে তাইমিয়্যা

* * *
যাদের হৃদয় অন্ধ তাদের চাইতে যাদের চোখ অন্ধ তারা বেশি দেখতে পায়। ~ আরবি প্রবাদ

* * *
অতীত আপনার যেমনটাই হোক না কেন, ভবিষ্যত কিন্তু আপনার এখনো দাগহীন।~ বুনা মুহাম্মাদ

* * *
সুখ জীবনের গন্তব্য নয়, এটা আমাদের জীবনের চলার পথের একটা রাস্তা। ~ ইয়াসমিন মোজাহেদ

* * *
আপনি যত্ক্ষণ বেঁচে আছেন, ততক্ষণ নতুন করে আবার সব শুরু করতে পারেন। ~ বুনা মুহাম্মাদ

* * *
সবচেয়ে ধনী তিনি নন যার সম্পদ সবচাইতে বেশি, বরং তিনিই যার প্রয়োজন সবচেয়ে কম।” ~ জনৈক

* * *
“আপনার জন্য যা নির্ধারণ করা হয়েছে, তা যদি দুই পর্বতের নিচেও থাকে, তবু তা আপনার কাছে পৌঁছে যাবে। আপনার জন্য যা নির্ধারণ করা হয়নি, তা যদি দুই ঠোঁটের মাঝেও থাকে, তবু তা আপনার কাছে পৌঁছবে না।” ~আরবি প্রবাদ

অনুপ্রেরণা – ১

“যে মানুষটাকে ভালোবাসি, তাকে আমাদের অবশ্যই বুঝতে হবে। আমাদের ভালোবাসা যদি হয় কেবল কাউকে দখল করে রাখার কোন চাওয়া, তাহলে তা ভালোবাসা নয়। আমরা যদি শুধু আমাদেরকে নিয়ে চিন্তা করি, শুধু আমাদের প্রয়োজনগুলোই বুঝি এবং অন্যদের প্রয়োজনকে এড়িয়ে যাই, তাহলে আমরা কখনই ভালোবাসতে পারবো না। যাদের ভালোবাসি তাদের প্রয়োজন, চাওয়া, ভালোলাগা এবং কষ্টগুলো আমাদেরকে অবশ্যই গভীরভাবে খেয়াল করতে। এটাই প্রকৃত ভালোবাসার পথ। আপনি যখন কাউকে সত্যিকার অর্থে বুঝতে পারবেন, তখন তাকে ক্রমাগত ভালোবেসে যাওয়া থেকে আপনি নিজেকে ঠেকাতে পারবেন না।” [গ্রন্থ : Peace Is Every Step: The Path of Mindfulness in Everyday Life]

* * *
“আপনাকে যারা ভালোবাসে তারা আপনার করা ভুলগুলো অথবা আপনার বাজে স্মৃতিগুলোকে মনে রাখার বোকামি করবে না। আপনাকে যখন দেখতে খারাপ লাগে তখন তারা আপনার সৌন্দর্যকে স্মরণ রাখে, আপনি যখন ভেঙ্গে পড়েন তখন আপনার পূর্ণতার সময়গুলোকে মনে রাখে, আপনি যখন অপরাধবোধে ভুগেন তখন আপনার সরলতাকে খেয়ালে রাখে এবং আপনি যখন দ্বিধায় থাকেন তখন আপনার উদ্দেশ্যকে মনে রাখে। [অ্যালান কোহেনের উদ্ধৃতির ভাবানুবাদ]

* * *
জীবনের যেসব বিষয় নিয়ে হিসাব-নিকাশ মেলেনি, সেগুলোর ব্যাপারে ধৈর্য ধরুন। সেই উত্তর-না-পাওয়া প্রশ্নগুলোকেই ভালোবাসতে চেষ্টা করুন, যেমন করে আপনি গ্রহণ করে থাকেন বন্ধ দরজার একটি ঘর অথবা ভিনদেশি ভাষায় লেখা কোন একটা বই। এখনই সব উত্তর খুঁজতে ব্যস্ত হবেন না। আপনাকে সেই প্রশ্নগুলোর উত্তর এখন দেয়া হবে না কেননা সেসব জেনে আপনি ঠিকভাবে বাঁচতে পারবেন না। তাছাড়া, এই বিষয়গুলো হলো অভিজ্ঞতার পথ দিয়ে যাওয়া। জীবনের এই দিনগুলোতে আপনার এই প্রশ্নগুলো বুকে নিয়েই বাঁচতে হবে। হয়ত, সময়ের সাথে কোন একদিন, আপনি নিজের অজান্তেই ধীরে ধীরে প্রশ্নগুলোর উত্তর জেনে যাবেন। [রেইনার রিলকার ‘Letters To A Young Poet’ থেকে উদ্ধৃত অংশের ভাবানুবাদ]

* * *
যারা আপনাকে সাধারণ কিছু স্নিগ্ধ ও শান্ত কথা বলে একটুখানি স্বস্তি এনে দিতে চেষ্টা করেন, তাদের দেখে  এমনটা ভেবে বসবেন না যে তাদের জীবনটা যন্ত্রণাবিহীন। তার জীবনেও দুঃখ-কষ্ট এবং যন্ত্রণা থাকতে পারে যা হয়ত আপনার চাইতেও বেশি। যদি তেমনটা না-ই হতো, তাহলে তিনি এমন কিছু শব্দ কখনো খুঁজে পেতেন না।
~ রেইনার রিলকা [অস্ট্রিয়ান ঔপন্যাসিক, ১৮৭৫-১৯২৬]

* * *
“চারপাশে অনেক ঘৃণার মাঝে আমি আমার ভেতরে এক অপরাজেয় ভালোবাসাকে খুঁজে পেয়েছি। অনেক অশ্রুধারার মাঝে আমি নিজের ভেতরে এক প্রশান্তিকে খুঁজে পেয়েছি। তীব্র শীতের মাঝে আমি খুঁজে পেয়েছি আমার ভেতরে এক অপরাজেয় গ্রীষ্মকাল ছিলো, যা আমাকে সুখী করেছে। এগুলো উপলব্ধি আমাকে মনে করিয়ে দিয়েছে, এই পৃথিবী আমাকে যতই চাপ দিয়ে পিষ্ট করতে চেষ্টা করুক না কেন, আমার ভেতরে তার চেয়ে শক্তিশালী কিছু রয়েছে যা সেই তাকে আপন শক্তিতে ফিরিয়ে দিচ্ছে।” [আলবার্ট কামুসের উদ্ধৃতি অনুসরণে]

* * *
আপনি যেমন ঠিক তেমন করেই আরেকজনকে ভালোবাসতে দিন — থাকুক না আপনার খুঁতগুলো, কিংবা নিজেকে অনাকর্ষণীয় মনে হওয়া কিংবা নিজেকে অসম্পূর্ণ মনে করা। হয়ত ভেবেছেন নিখুঁত হতে পারেননি বলে হয়ত আপনাকে কেউ ভালোবাসতে পারবে না, আর সেই কারণে আপনার খুঁতগুলোকে অবশ্যই ঢেকে রাখতে হবে। এমন বিশ্বাসের সাথে তো তুলনা চলে সেই বিশ্বাসের যাতে মনে করা হয় সূর্যের আলো এসে ভাঙ্গা জানালা দিয়ে ঘরে ঢুকে অন্ধকার ঘরকে আলোকিত করতে পারবে না। [মার্ক হ্যাকের উদ্ধৃতির অবলম্বনে]

* * *
অসাধারণ আর চমৎকার মানুষ হিসেবে আমরা তাদেরকেই পাই যারা জীবনে পরাজিত হয়েছেন, দুঃখ-কষ্টে ভুগেছেন, জীবনযুদ্ধে ধুঁকেছেন, অনেক কিছু হারিয়েছেন; যারা শত কষ্ট ও প্রতিবন্ধকতায় জীবনকে গভীর থেকে উপলব্ধি করেছেন। তাদের থাকে জীবনের প্রতি ভালোবাসা, স্পর্শকাতরতা, থাকে গভীর জীবনবোধ, ভাঙ্গাকে গড়ে নেয়ার প্রতি আর্তি যা তাদেরকে সহানুভূতিশীল, বিনয়ী, নম্র, দয়ার্দ্র এবং অন্যের কষ্টের ব্যাপারে সচেতন করে তোলে। অসাধারণ আর সুন্দর মানুষেরা আপনা আপনিই তৈরি হয়ে যায় না। [Elisabeth Kubler-Ross-এর উদ্ধৃতির আলোকে]

* * *
“কখনো ব্যর্থ না হবার মাঝে নয়, বরং প্রতিটি ব্যর্থতার পরে উঠে দাঁড়ানোর মাঝেই আমাদের গৌরব লুকিয়ে থাকে।”~ কনফুসিয়াস

* * *
“চিন্তাগুলোর ব্যাপারে সচেতন হোন, আপনার চিন্তা মুখের কথায় পরিণত হয়,
মুখের কথার ব্যাপারে সচেতন হোন, আপনার কথা কাজে পরিণত হয়,
কাজগুলোর ব্যাপারে সচেতন হোন, আপনার কাজ স্বভাবে পরিণত হয়,
স্বভাবের ব্যাপারে সচেতন হোন, আপনার স্বভাব চরিত্রে পরিণত হয়,
চরিত্রের ব্যাপারে সচেতন হোন, কেননা তা আপনার ভবিষ্যত নির্ধারণ করে দেবে।”
~  লাও যু, প্রাচীন চৈনিক দার্শনিক [খ্রিষ্টপূর্ব ৬ষ্ঠ শতক]

* * *
“যারা কথা বলে তারা জানে না, যারা জানে তারা কথা বলে না।”~ প্রাচীন চৈনিক দার্শনিক লাও-যু

* * *
“চরিত্র গড়েই উঠে পছন্দ থেকে। দিনের পর দিন, আপনি যা পছন্দ করেন,চিন্তা করেন এবং যেঁ কাজগুলো করেন  — তা আপনাকে গড়তে থাকে, একদিন তা ‘আপনি’তে পরিণত হয়।” ~ হেরাক্লিটাস

* * *
“আমি যখন জীবনের পেছনে ফিরে তাকাই, আমি উপলব্ধি করি যতবার ভেবেছিলাম আমি কোন ভালো কিছুর প্রাপ্তি থেকে বঞ্চিত হচ্ছি, আমাকে আসলে আরো বেশি ভালো কিছুর দিকে ঘুরিয়ে দেয়া হচ্ছিলো। ~স্টিভ মারাবোলি

* * *
এমন এক ভালোবাসাতে বিশ্বাস করুন যা আপনার জন্য জমা আছে যেমন থাকে উত্তরাধিকার সূত্রে পাওয়া সম্পদ। দৃঢ় বিশ্বাস রাখুন সেই ভালোবাসার মাঝে এমন সুবিশাল শক্তি আর আশীর্বাদ আছে যার মাঝে আপনি যত ইচ্ছা তত ঘুরে বেড়াতে পারবেন এবং সেই ভালোবাসার বৃত্ত থেকে বাইরে পা দেয়ার দরকারই আপনার হবে না। [রেইনার মারিয়া রিলকার উদ্ধৃতি অনুসরণে]

আমাদের মনের জানালা দিয়ে দেখা

একটা গল্প, কিছু কথা, বলে দেয় অনেক কিছুই…
…..

নববিবাহিত দম্পতি নতুন বাসা নিয়েছে। পরদিন সকালে তারা যখন নাশতা করছিলো, মেয়েটি জানালা দিয়ে পাশের বাড়ির দিকে তাকিয়ে দেখতে পেলো কাপড় শুকাতে দিয়েছে ঘরের কর্ত্রী। সে বলে উঠলো,
– ‘কাপড়টা পরিষ্কার হয়নি, ঐ বাসার মহিলা ভালো করে কাপড় ধুতে জানেনা। তার মনে হয় ভালো কোন কাপড় কাচার সাবান দরকার।” মেয়েটির স্বামী সেদিকে তাকালো, কিন্তু নিশ্চুপ রইলো।

যতবারই পাশের বাড়ির মহিলাটি কাপড় শুকাতে দিতো, ততবারই এই মেয়েটি একই মন্তব্য করতো।

মাসখানেক পরে সেই বাড়িতে সুন্দর পরিষ্কার কাপড় শুকানোর জন্য ঝুলতে দেখে মেয়েটি অবাক হয়ে তার স্বামীকে বললো,”দেখো, অবশেষে উনি শিখেছেন কীভাবে ঠিকভাবে কাপড় ধুতে হয়। আমি তো ভাবছি কে তাকে শেখালো!!”
তখন ছেলেটি বলে উঠলো, “শোনো, আজ ভোরে আমি আমাদের জানালার কাঁচ পরিষ্কার করেছি!”

…..

আমাদের জীবনটাও এমনই —

“আমরা কোন কিছু দেখার সময় যা দেখি তা নির্ভর করে আমাদের সেই জানালার পরিচ্ছন্নতার উপর যা দিয়ে আমরা দেখি। কোন সমালোচনা করার আগে আমাদের নিজের মনের অবস্থাটা খেয়াল করে নেয়া প্রয়োজন, নিজেদেরকে প্রশ্ন করা দরকার যে আমরা কি তার মাঝে কোন ভালো দেখতে চাই আদৌ? নাকি মানুষটার দিকে তাকাচ্ছি তার ভুলগুলো খুঁজে পেতে বিচার করবো বলেই।”

সবাই তো পড়লাম… আসুন তা নিজেদেরকে স্মরণ করিয়ে দিই।

[শাইখ যাহির মাহমুদের ফেসবুক পেইজের পোস্ট থেকে ভাষান্তর]